অনুমতি না থাকায় মুফতি তাহেরীর সভা বন্ধ করল পুলিশ

অনুমতি-না-থাকায়-মুফতি-তাহেরীর-সভা-বন্ধ-করল-পুলিশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অনুমতি না থাকায় আলোচিত ইসলামি বক্তা মুফতি মো. গিয়াস উদ্দিন আত-তাহেরীর ‘মাদক ও কিশোর গ্যাংবিরোধী’ সভা পুলিশ বন্ধ করে দিয়েছে।

আজ বুধবার সদর উপজেলার মাছিহাতা ইউনিয়নের চাপুইর গ্রামে এ সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। তার আগেই সকালে পুলিশ সেখানে গিয়ে সভা বন্ধ করে দেয়।

করোনাভাইরাসের কারণে গণজমায়েত নিষিদ্ধ থাকায় সভা বন্ধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে মুফতি তাহেরীর দাবি, করোনাভাইরাসের কারণে ছোট পরিসরেই সভার আয়োজন করা হয়েছিল।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চাপুইর গ্রামে মুফতি গিয়াস উদ্দিন আত-তাহেরীর বাসভবনের সামনে খোলা জায়গায় ‘দাওয়াতে ঈমানী বাংলাদেশ’ নামের একটি সংগঠন ‘মাদক ও কিশোর গ্যাংবিরোধী’ এই সভার আয়োজন করে। তাহেরী নিজেই এ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান। সভায় মাছিহাতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আল আমিনুল হক পাভেল প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল। কিন্তু পুলিশ সভাটি বন্ধ করে দেওয়ায় চেয়ারম্যান সভাস্থলে আসেননি।

আজ বেলা ১১টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সোহরাব হোসেনের নেতৃত্বে একটি দল গিয়ে সভা বন্ধ করে দেয়। এতে সভায় আগতদের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

এ ব্যাপারে মুফতি গিয়াস উদ্দিন আত-তাহেরী গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমাদের এলাকায় মাদক ছড়িয়ে পড়েছে, যার জন্য মাদকবিরোধী সভা করা খুবই প্রয়োজন মনে করেছি। যে কিশোররা পড়ালেখা করে দেশ ও জাতির কল্যাণ করবে তারা কিশোর গ্যাং তৈরি করছে। তাদের সচেতন করার জন্য এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে মাদক ও কিশোর গ্যাংবিরোধী সভার আয়োজন করেছিলাম।’

তাহেরী আরো বলেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে আমরা ছোট পরিসরে সভার আয়োজন করেছিলাম। কিন্তু প্রশাসন থেকে নিষেধ করা হয়েছে। প্রশাসন আমাদের আশ্বস্ত করেছে যে, পরবর্তী সময়ে তারাও এ অনুষ্ঠানে থাকবে।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার এসআই সোহরাব হোসেন বলেন, ‘চলমান করোনা পরিস্থিতিতে সরকারিভাবে গণজমায়েত নিষিদ্ধ রয়েছে। সেজন্য তাহেরীর সভা বন্ধ রাখার জন্য বলা হয়েছে।’

আরো পড়ুনঃ চলন্ত ট্রেনে তরুণীকে ধর্ষণ