১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
দুপুর ২:৪০

জনপ্রিয় ৫ সংবাদ

আরো কিছু সংবাদ

আজমিরীগঞ্জে জাতীয় পরিচয়পত্র উত্তোলনের নামে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতারকচক্র

হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জে জাতীয় পরিচয়পত্র উত্তোলনের নামে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা অসহায় দরিদ্র ও সহজ সরল লোকজনের নিকট থেকে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এলাকার একটি প্রতারক চক্র।প্রতিটি পরিচয়পত্র উত্তোলন বাবদ নিচ্ছে তারা ৬ হাজার টাকা করে।

এক অনুসন্ধানে জানা যায়, আজমিরীগঞ্জের বদলপুর ইউনিয়নের পিরোজপুর গ্রামের বাসিন্দা মোঃ ওয়ারিশ মিয়ার পুত্র জুবায়েল মিয়া ও মোঃ নূর মিয়ার পুত্র অনিক মিয়া দেশের বাহিরে অর্থাৎ বিদেশে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

এ প্রক্ষিতে পাসপোর্ট করা খুবই জরুরী। পাসপোর্ট করার পূর্ব শর্ত পাসপোর্টের আবেদনকারীকে তাদের আবেদনপত্রে অবশ্যই জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি সংযোজন করতে হবে।

এরই ধারাবাহিকতায়, তারা তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র উত্তোলন করতে আজমিরীগঞ্জ টান বাজারের মাছবাজার সংলগ্ন পৌর এলাকার সমীপুর গ্রামের বাসিন্দা মৃত নিধু রায়ের পুত্র মিঠু রায়ের মালিকাধীন কম্পিউটারের দোকানে আসে।

মিঠু রায় এক সপ্তাহের মধ্যে অনলাইনে জাতীয় পরিচয়পত্র উত্তোলন দেয়ার কথা বলে নগদ অর্থ দাবি করে। পর উভয়পক্ষের আলোচনার প্রেক্ষিতে দুটি জাতীয় পরিচয়পত্র বাবদ ১২ হাজার টাকা দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে তারা মিঠুকে ৮হাজার টাকা পরিশোধ করে। পরিচয়পত্র হাতে পাওয়ার পর বাকি ৪ হাজার টাকা পরিশোধের সিদ্ধান্ত হয়। এব্যাপারে ভূক্তভোগী অনিক মিয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে।

এ ছাড়া সে আরও জানায়, একই ভাবে কাকাইলছেওয়ের ঘরদাইর গ্রামের ২ জনের নিকট থেকে ২ টি ও পৌর এলাকার নগর গ্রামের ঝলক নামে একজনের নিকট থেকে ১টি জাতীয় পরিচয় পত্র বাবদ একই ভাবে নগদ অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। এদিকে এক সপ্তাহ অতিবাহিত হলেও তাদেরকে জাতীয় পরিচয়পত্র এনে দিতে পারেনি প্রতারক মিঠু।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাচন অফিসারের সহিত যোগাযোগ করা হলে,উনি মোবাইল রিসিভ করেননি।এভাবেই প্রতারক চক্রটি গ্রামের হতদরিদ্র ও সহজ সরল লোকজনের নিকট হইতে হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা। এব্যাপারে উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন উপজেলার ভুক্তভোগীগন।