উপজেলা পরিষদ নির্বাচনঃ উৎফুল্ল আ’লীগ হতাশায় বিএনপি

0
6

দিদার এলাহী সাজু, হবিগঞ্জঃ হাওর-বাওর, পাহাড়-নদী আর সমতল ভুমির সমান সংমিশ্রণে গড়ে উঠা প্রাকৃতিক অপরুপ এক সৌন্দর্য্যরে জনপদ হবিগঞ্জ জেলা। ৯টি উপজেলা, ৬টি পৌরসভা ও ৭৮টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এ জেলায় প্রায় ২০ লক্ষাধিক মানুষের বসবাস।

নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ১০ মার্চ দেশব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ১ম ধাপ। এ লক্ষে সারাদেশের ন্যায় হবিগঞ্জেও ধীরে ধীরে সরগরম হয়ে উঠছে নির্বাচনী মাঠ। জেলায় ১ম বারের মত দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা নির্বাচন নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে চলছে নানামুখী আলোচনা-সমালোচনা। তবে এ নিয়ে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ যতটা উৎফুল্ল, ঠিক ততটা হতাশা বিরাজ করছে বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোটে।

জেলা বিএনপি সূত্র জানায়, উপজেলা নির্বাচন নিয়ে তেমন কোন আগ্রহই নেই দলটির। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর থেকে হাতাশায় ডুবেছেন সকলস্তরের নেতা-কর্মীরা। তবে কোন কোন উপজেলায় স্থানীয় ভাবে শক্তিশালী নেতারা স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার আভাস দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ জেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট এনামুল হক সেলিম বলেন, ‘দেশে গণতন্ত্র নেই, নির্বাচনের পরিবেশও নেই। যেহেতু কেন্দ্রীয় নির্দেশনা নেই, তাই নির্বাচন নিয়ে আপাতত তেমন আগ্রহও নেই আমাদের’। বিএনপি’র স্বতন্ত্র প্রার্থীদের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘যারা দলীয় নির্দেশ অমান্য করে নির্বাচনে অংশ নেবে তারা আমাদের বড় শক্রু হিসেবে গন্য হবে’।

অপরদিকে, জেলা আওয়ামীলীগ সূত্র জানায়, উপজেলা নির্বাচনের সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে দলটি। নির্বাচন নিয়ে উৎসব আমেজ বিরাজ করছে নেতা-কর্মীদের মধ্যে। এ ব্যাপারে জেলা আওয়ায়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান শামীম বলেন, ‘ইতিমধ্যেই জেলার ৮টি উপজেলায় দলীয় প্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে। প্রার্থীদের বিজয় নিশ্চিত করতে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করছে সকলস্তরের নেতাকর্মীরা’।

কেন্দ্রীয় ভাবে ঘোষিত হবিগঞ্জের ৮ উপজেলায় নৌকার চুড়ান্ত কান্ডারীরা হলেন, হবিগঞ্জ সদর উপজেলায় জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান শামীম, বানিয়াচং উপজেলায় সুবিদপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কাশেম চৌধুরী, নবীগঞ্জ উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ আলমগীর চৌধুরী, লাখাই উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ মুশফিউল আলম আজাদ, বাহুবল উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল হাই, চুনারুঘাট উপজেলায় সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল কাদির লস্কর, মাধবপুর উপজেলায় আলহাজ্ব আতিকুর রহমান, আজমিরীগঞ্জ উপজেলায় জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সম্পাদক মর্তুজা হাসান।

এদিকে, ইসি ঘোষিত তফসিলে নেই নবগঠিত শায়েস্থাগঞ্জ উপজেলার নাম। ধারণা করা হচ্ছে, ৩য় অথবা সর্বশেষ ধাপে হতে পারে শায়েস্থাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। কিন্তু তারপরও বসে নেই সরকার দলীয় প্রার্থীরা। দলীয় মনোনয়ন পেতে চলছে সম্ভাব্য আওয়ামীলীগ প্রার্থীদের ‘লবিং-প্রচারণা’। ৩টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত শায়েস্থাগঞ্জ উপজেলায় সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় রয়েছেন, আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুর রশিদ তালুকদার ইকবাল, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আলী আহম্মদ খান ও এডভোকেট মীর গোলাম মোস্তফা।

নির্বাচন বিষয়ে শায়েস্থাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এম ফেরদৌস ইসলাম জানান, ভোটার তালিকা প্রস্তুত না হওয়াসহ না-না জঠিলতার কারনে পিছিয়ে গেছে শায়েস্থাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। তিনি আশা প্রকাশ করেন, ৩য় অথবা শেষ ধাপে হতে পারে শায়েস্থাগঞ্জের প্রথম নির্বাচন।