১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
দুপুর ১:২৭

জনপ্রিয় ৫ সংবাদ

আরো কিছু সংবাদ

জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড ২০২৩ টপ এচিভার হয়েছে – উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাব, হবিগঞ্জ

সপ্তমবারের মতো দেশ গঠনে এগিয়ে আসা একদল তরুণের হাতে উঠবে জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড। ছয়টি ক্যাটাগরিতে বিজয়ী তরুণ সংগঠনগুলোর হাতে পুরস্কার তুলে দেন বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র ও সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) চেয়ারম্যান সজীব ওয়াজেদ জয়।
দেশের ৭৫০টিরও বেশি সংগঠনের মধ্য থেকে ছয় ক্যাটাগরিতে এই পুরস্কার দেওয়ার আয়োজক আওয়ামী লীগের গবেষণা উইং সিআরআই’র অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ‘ইয়াং বাংলা’।
উদ্ভাবন ও যোগাযোগ ক্যাটাগরিতে টপ ফাইনালিস্ট পুরস্কার পেয়েছে।  হবিগঞ্জ জেলার একমাত্র কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি শিক্ষার উন্নয়ন মূলক সংগঠন উদ্ভাবনী বি জ্ঞান ক্লাব,  হবিগঞ্জ।  সারা বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড ২০২৩ এ ৭৫০+ সংগঠনের মধ্যে সেরা টপ ২৬ এচিভার হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছে।
উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাব,হবিগঞ্জের পক্ষে জয় বাংলা ইয়ুথ এওয়ার্ড এর জন্য আবেদন করেন বাংলাদেশের তরুণ বিজ্ঞানী ও ক্লানের প্রতিষ্ঠাতা-পরিচালক জনাব,মোহাম্মদ মোশাহিদ মজুমদার। যিনি হবিগঞ্জ জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে ইনোভেশন কালচার ছড়িয়ে দিয়ে একটি উদ্ভাবনী সংস্কৃতি ডেভলপমেন্টের কাজ করছেন। এছাড়াও তিনি বলেন দেশে একটি উদ্ভাবনী নীতিমালা প্রয়োজন যা তরুণদের উদ্ভাবনের পথ সহজ সমাধান হয়। বি জ্ঞান ও প্রযুক্তি শিক্ষার উন্নয়ন মূলক সংগঠনটির সকল উদ্ভাবক-উদ্যোক্তা সম্পৃক্ত করে কাজ করে যাচ্ছেন – জেলার ৯ টি উপজেলার ১৭৫ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যার ধারাবাহিকতায় আজ উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাব হবিগঞ্জ সারা বাংলাদেশে হবিগঞ্জ জেলাকে ব্যান্ডিং করেছে।
এই অর্জনে জেলার সর্বস্তরের মানুষ তাদেরকে নানাভাবে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন সোশাল মিডিয়া। পাশাপাশি ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ মোশাহিদ মজুমদার বলেন আমাদের এই অর্জন ক্লাবের সকল সদস্যদেরও জেলা বাসীকে উৎসর্গ করলাম।
উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাব জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড পাওয়ার জন্য বেশ কয়েকটি কারণ রয়েছে।
প্রথমত, ক্লাবটি হবিগঞ্জ জেলায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে। ক্লাবটি বিভিন্ন উদ্ভাবনী কার্যক্রম পরিচালনা করে, যার মধ্যে রয়েছে উদ্ভাবনী ধারণা তৈরি ও বাস্তবায়নের জন্য শিক্ষার্থীদেরকে উৎসাহিত করা, উদ্ভাবনী প্রকল্প ও গবেষণার জন্য প্রয়োজনীয় কিট সরবরাহ এবং অর্থায়ন প্রদান করা, উদ্ভাবনী উদ্যোক্তাদের নতুন নতুন স্টাটআপ তৈরি জন্য সহায়তা প্রদান করা, এবং উদ্ভাবনী শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা। এই কার্যক্রমগুলির মাধ্যমে ক্লাবটি তরুণদের মধ্যে উদ্ভাবনী চিন্তাভাবনা ও উদ্যোগের প্রসার ঘটাতে সহায়তা করছে।
দ্বিতীয়ত, ক্লাবের কার্যক্রমগুলি সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নত করতে সহায়তা করছে। ক্লাবের উদ্ভাবনগুলি বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে সহায়তা করছে, যার মধ্যে রয়েছে কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি, পরিবেশ দূষণ কমানো, এবং বন্যা প্রতিরোধ করা।
তৃতীয়ত, ক্লাবটি একটি উদ্ভাবনী সংস্কৃতি গড়ে তোলার উপর জোর দেয়। ক্লাবটি বিশ্বাস করে যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির মাধ্যমে সমাজের উন্নতি করা সম্ভব। এই লক্ষ্যে ক্লাবটি বিভিন্ন উদ্ভাবনী কার্যক্রম পরিচালনা করে, যা তরুণদের মধ্যে উদ্ভাবনী চিন্তাভাবনা ও উদ্যোগের প্রসার ঘটাতে সহায়তা করে।
উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাবের এই অবদানগুলি বিবেচনা করে বলা যায় যে তারা জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড পাওয়ার জন্য যোগ্য। অ্যাওয়ার্ডটি তাদের কাজের স্বীকৃতি এবং তাদেরকে আরও উৎসাহিত করবে।
জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড বাংলাদেশের তরুণদের জন্য একটি সম্মানজনক পুরস্কার। এটি তরুণদের তাদের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে এবং সমাজের জন্য অবদান রাখতে উৎসাহিত করে।
মোহাম্মদ মোশাহিদ মিয়া উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা এবং পরিচালক। তিনি একজন তরুণ উদ্ভাবক এবং উদ্যোক্তা। তিনি ২০১৯ সালে হবিগঞ্জ জেলায় উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাব প্রতিষ্ঠা করেন।
মো: মোশাহিদ মিয়া উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাবের প্রতিষ্ঠার পেছনে বেশ কয়েকটি অবদান রয়েছে। তিনি একজন উদ্ভাবনী চিন্তাবিদ এবং তিনি বিশ্বাস করেন যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির মাধ্যমে সমাজের উন্নতি করা সম্ভব। তিনি এই লক্ষ্যে উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাব প্রতিষ্ঠা করেন।
মো: মোশাহিদ মিয়া উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাবের মাধ্যমে হবিগঞ্জ সহ বাংলাদেশের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। তিনি ক্লাবের মাধ্যমে বিভিন্ন উদ্ভাবনী কার্যক্রম পরিচালনা করেন, যার মধ্যে রয়েছে উদ্ভাবনী ধারণা তৈরি ও বাস্তবায়নের জন্য শিক্ষার্থীদেরকে উৎসাহিত করা, উদ্ভাবনী প্রকল্প ও গবেষণার জন্য অর্থায়ন প্রদান করা, উদ্ভাবনী উদ্যোক্তাদের জন্য সহায়তা প্রদান করা, এবং উদ্ভাবনী শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা। এই কার্যক্রমগুলির মাধ্যমে তিনি তরুণদের মধ্যে উদ্ভাবনী চিন্তাভাবনা ও উদ্যোগের প্রসার ঘটাতে সহায়তা করছেন।
মো:মোশাহিদ মজুমদার উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাবের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নত করতেও সহায়তা করেছেন। ক্লাবের উদ্ভাবনগুলি বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে সহায়তা করছে, যার মধ্যে রয়েছে কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি, পরিবেশ দূষণ কমানো, এবং বন্যা প্রতিরোধ করা।
মোশাহিদ মজুমদারের উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাবের প্রতিষ্ঠা ও পরিচালনা বাংলাদেশের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক। তিনি একজন অনুপ্রেরণা এবং তার কাজ বাংলাদেশের তরুণদের জন্য একটি অনুপ্রেরণা।
ইয়াং বাংলার এই আয়োজনে সকালে যোগ দেন সিআরআইর চেয়ারম্যান সজীব ওয়াজেদ জয় ও সিআরআইর ট্রাস্টি রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিকী।
সিআরআইর ট্রাস্টি জ্বালানি ও বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম, সাংসদ নাহিম রাজ্জাক অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।