হবিগঞ্জের ৪ আসনে ভোটের মাঠে ২৩ প্রার্থী

জাতীয় সংসদ নির্বাচন

দিদার এলাহী সাজু , হবিগঞ্জ: অবশেষে জেলায় ভোটের মাঠে থাকছেন ২৩ প্রার্থী।  রোববার প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিনে জেলা নির্বাচন কমিশন কার্যালয় সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

জানা যায়, জেলার ৪টি আসনে বিভিন্ন দল ও স্বতন্ত্র মিলিয়ে ৩৮ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। এদের মধ্যে যাচাই-বাছাইয়ে বাতিল হয় ১২ জনের প্রার্থীতা। পরে আপিলে প্রার্থীতা ফিরে পান ৫ জন। রোববার প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন ৫ জন। দলীয় চুড়ান্ত চিঠি না পাওয়ায় নির্বাচন কমিশনের আইনে স্বয়ংক্রীয় ভাবে প্রার্থীতা বাতিল হবে আরও ৩ জনের।

এ অবস্থায় শেষমেষ ভোটের মাঠে থাকছেন ২৩ প্রার্থী। শেষমেষ ভোটের মাঠে যারা প্রতিদ্ধন্দিতা করছেন, তারা হলেন; হবিগঞ্জ-১ (বাহুবল-নবীগঞ্জ) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের শাহ নেওয়াজ মিলাদ গাজী, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ড. রেজা কিবরিয়া, জাতীয় পার্টির আলহাজ্ব আতিকুর রহমান আতিক, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল বাসদের চৌধুরী ফয়সল শোয়েব, কৃষক শ্রমিক জনতালীগের অ্যাডভোকেট মোঃ নুরুল হক, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের হাফেজ্ব জুবায়ের আহমেদ ও ইসলামী আন্দোলনের প্রিন্সিপাল মাওলানা আবু হানিফা আহমদ হোসনে। হবিগঞ্জ-২ (বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খান এমপি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আল্লামা আব্দুল বাছিত আজাদ, জাতীয় পার্টির শংকর পাল, স্বতন্ত্র প্রার্থী সাংবাদিক আফছার আহমদ (রূপক), ইসলামী আন্দোলনের আবু জামাল মসউদ হাসান, কৃষক শ্রমিক জনতালীগের অ্যাডভোকেট মনমোহন দেবনাথ ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টি’র (এনপিপি) পরেশ চন্দ্র দাস।

হবিগঞ্জ-৩ (সদর-লাখাই-শায়েস্তাগঞ্জ) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির এমপি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আলহাজ্ব জি কে গউছ, জাতীয় পাটির্’র আলহাজ্ব মোহাম্মদ আতিকুর রহমান আতিক, ইসলামী আন্দোলনের মুহিব উদ্দিন আহমদ সোহেল ও বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি’র (সিপিবি) পীযুষ চক্রবর্তী।

হবিগঞ্জ-৪ (চুনারুঘাট-মাধবপুর) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের অ্যাডভোকেট মোঃ মাহবুব আলী এমপি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ড. আহমদ আব্দুল কাদের, ইসলামী আন্দোলনের শেখ মোঃ শামসুল আলম ও বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মাওলানা সোলায়মান খান রাব্বানী।

এদিকে, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারকারী প্রার্থীরা হলেন, হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ-বাহুবল) আসনে জাতীয় পার্টির বর্তমান এমপি এম এ মুনিম চৌধুরী বাবু ও স্বতন্ত্র প্রার্থী অধ্যাপক মোঃ আব্দুল হান্নান, হবিগঞ্জ-২ (বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আসনে জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মাওলানা আব্দুর রব ইউছুফি, হবিগঞ্জ-৩ (হবিগঞ্জ-সদর-লাখাই-শায়েস্তাগঞ্জ) আসনে বিএনপির এডভোকেট এনামুল হক সেলিম ও গণফোরামের চৌধুরী আশরাফুল বারী নোমান। এছাড়াও দলীয় চুড়ান্ত চিঠি না পাওয়ায় নির্বাচন কমিশনের আইনে স্বয়ংক্রীয় ভাবে প্রার্থীতা বাতিল হবে আরও ৩ জনের। এরা হলেন, হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ-বাহুবল) আসনে শেখ সুজাত মিয়া, হবিগঞ্জ-২ (বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আসনে ডাঃ সাখাওয়াত হাসান জীবন ও হবিগঞ্জ-৪ (চুনারুঘাট-মাধবপুর) আসনে সৈয়দ মোহাম্মদ ফয়সাল।

মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষিত প্রার্থীরা হলেন, হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ-বাহুবল) আসনে সংরক্ষিত আসনের এমপি এডভোকেট আমাতুল কিবরিয়া চৌধুরী কেয়া (স্বতন্ত্র), ইসলামিক ফ্রন্টের মুফতি বদরুর রেজা সেলিম, হবিগঞ্জ-২ (বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আসনে বিএনপির প্রার্থী মোঃ জাকির হোসেন, হবিগঞ্জ-৩ (হবিগঞ্জ সদর-লাখাই-শায়েস্তাগঞ্জ) আসনে মাওলানা আতাউর রহমান (স্বতন্ত্র), ন্যাশনাল পিপলস পাটি’র (এনপিপি) মোঃ আব্দুল কাদির ও হবিগঞ্জ-৪ (মাধবপুর-চুনারুঘাট) আসনে ইসলামিক ফ্রন্টের মুফতি এমএ মমিন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ আনছারুল হক।