৩ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ
27 C
Habiganj
৩ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ
হোম হবিগঞ্জ জুয়া: এ যেন একটি কালচারের নাম

জুয়া: এ যেন একটি কালচারের নাম

ক্রিকেটকে বলা হয় ভদ্রলোকের খেলা। কিন্ত এই বাস্তবতা এখন পুরোপুরি ভিন্ন। বর্তমান সময়ে মাদকের চেয়েও ভয়ঙ্কর রূপ নিচ্ছে ক্রিকেট জুয়া। গ্রাম-গঞ্জ, শহর-নগরসহ দেশের প্রতিটি প্রান্তরে ছড়িয়ে পড়েছে এই ক্রিকেট জুয়া।

ক্রিকেটে বিশ্বের সবচেয়ে আকর্ষনীয় খেলা আইপিএল। বিশ্বকাপ ও বিভিন্ন ক্রিকেট লীগের আমেজ থাকে সারা বাংলায় সবসময়ই। আর এ আমেজ নিয়ে জমজমাট জুয়ার আসর তৈরি হয় সারাদেশে। যার প্রভাব থেকে রক্ষা পাচ্ছেনা ছোট বড় সবাই।

এই খেলাকে কেন্দ্র করে হবিগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় প্রতিদিন বসছে জমজমাট জুয়ার আসর। বেপরোয়া ভাবে জুয়া চালিয়ে যাচ্ছে এক শ্রেণীর জুয়াড়িরা।

এবারের আইপিএলের আসর জমেছে আরব আমিরাতে। কিন্তু তার উত্তাপ বরাবরই পায় বাংলাদেশে। খেলার আনন্দ ছাপিয়ে জুয়া মেতে উঠে দেশের অনেক জায়গায়। দিন মজুর থেকে শুরু করে স্কুল কলেজের ছাত্রসহ কম বেশি সবাই জড়িত আছে এই জুয়াতে।

এবার যেন হবিগঞ্জে জুয়ার প্রকোপ বেশিই দেখা যাচ্ছে। এতে সর্বস্বান্ত হচ্ছেন অনেকেই। আবার জুয়া কে ঘিরে চুরি, ছিনতাই, মারামারি ঘটছে নিয়মিত।

হবিগঞ্জে শুধু আইপিএল নয়, প্রায় সব খেলাকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন জায়গায় বসছে জুয়ার আসর।
খেলা শুরুর আগেই জুয়ারিরা একে অপরের সাথে যোগাযোগ করছে মোবাইলে। আর লেনদেন করছে সরাসরি বা বিকাশে।

জুয়ার টাকা জোগাড় করতে অনেকেই চুরি-ছিনতাইয়ের মত ঘটনা ঘটাচ্ছে। এতে দুশ্চিন্তায় অভিভাবক সহ সমাজের সচেতন নাগরিকরা।

প্রত্যক্ষদর্শী একজন হবিগঞ্জ নিউজ কে বলেন, “জুয়ারিরা প্রত্যেক ওভারের প্রতি বলে, কোন দল কত রান করবে এই ভাবে বাজি ধরে। যারা দিন আনে দিন খায় তাদেরকেও দেখা যায় এই বাজির মধ্যে।”

অন্য একজন হবিগঞ্জ নিউজ কে বলেন, “এই জুয়ার আসর গুলোতে প্রতিনিয়ত বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়। নিজেদের মধ্যে হাতাহাতি ছড়িয়ে পরে এলাকাভিত্তিক। এর মাধ্যমে বিভিন্ন এলাকায় ভিন্ন ভিন্ন নামে গ্রুপ তৈরি হচ্ছে।”

আইপিএল জুয়ার নেশায় যখন সর্বস্বান্ত হচ্ছে সাধারণ মানুষ তখন বসে নেই প্রশাসন। নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছে হবিগঞ্জ পুলিশ বাহিনী।

এ বিষয়ে জেলা সদর থানার ওসি মোঃ মাসুক আলী হবিগঞ্জ নিউজ কে বলেন, “জুয়ার ব্যাপারে আমাদেরকে সামাজিক ভাবে সচেতন ও সোচ্চার থাকতে হবে। কেউ যেন কোন ভাবে তা খেলতে না পারে লক্ষ রাখতে হবে।”

তিনি আরো বলেন, “থানা থেকে বিভিন্ন ভাবে অভিযান চলছে। যেখানে জমাটবদ্ধ হয়ে খেলা দেখা হয় সেখানের জনতাকে আমরা সচেতন করছি।”

“সুনির্দিষ্ট কোন অভিযোগ পেলে আমরা সাথে সাথে একশনে যাচ্ছি। এই সমস্যাটি সামাজিক ভাবে সোচ্চার হয়ে সমাধান করতে হবে।”

সম্পর্কিত সংবাদ

95,640FansLike
1,432FollowersFollow
2,458FollowersFollow
2,145SubscribersSubscribe

সর্বশেষ সংবাদ