নবীগঞ্জে টিসিবির পেয়াজ কিনতে গিয়ে আহত ১

মূল্যবৃদ্ধির ঊর্ধ্বগতির লাগাম টেনে ধরতে সরকারের উদ্যোগে নবীগঞ্জ উপজেলায় পেঁয়াজ, চিনি, ডাল, সয়াবিন তেল বিক্রি শুরু করেছে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। ৪৫ টাকা কেজি দরে এক কেজি করে এই পেঁয়াজ কিনতে ভিড় করছেন শত শত মানুষ। বিভিন্ন পেশাজীবীদেরও লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। পেয়াজের পাশাপাশি স্বল্পমূল্যে টিসিবির ট্রাকে ছিল চিনি, ডাল ও সয়াবিন তেল।

অন্যান্য পন্যের চেয়ে পেয়াজ কিনতে আসা ক্রেতাদের উপস্থিত ছিল লক্ষণীয়। পণ্যবাহী ট্রাকের সামনে ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হয়েছে পুলিশ প্রশাসনকেও। নবীগঞ্জ থানার এসআই সমীরণ চন্দ্র দাশের নেতৃত্বে একদল পুলিশ টিসিবির পণ্য বিক্রিকালে ভিড় সামলাতে চেষ্টা করে। কিন্তু এরপরও বাজারে পেঁয়াজের দামের ওপর কোনও প্রভাব পড়েনি।
বুধবার দুপুরে টিসিবির পণ্যবাহী ট্রাক আসে নবীগঞ্জ শহরতলীর ডাকবাংলো এলাকায়। সেখানে আগে থেকেই ৪৫টাকা কেজি দরে পেয়াজ কেনার জন্য অপেক্ষায় ছিলেন বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকজন।

তবে চাহিদা অনুযায়ী পণ্য বরাদ্দ না থাকায় অনেককেই ফিরে যেতে দেখা গেছে। ক্রেতারা জানান, বাজারের চেয়ে দাম কম হওয়ায় টিসিবির পেয়াজ, চিনি, সয়াবিন তেল ও মসুর ডাল কিনতে এসেছিলেন। তবে পর্যাপ্ত বরাদ্দ না থাকায় অনেক ক্রেতাকেই খালি হাতে ফিরতে হয়েছে। এদিকে স্বল্প মূল্যে টিসিবির পণ্য ক্রয় করতে গিয়ে টিসিবির ট্রাক থেকে পড়ে আহত হন (৭০) বয়সী এক বৃদ্ধ। তাৎক্ষণিক তাকে স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়।জা

না যায়, প্রথম দিনে নবীগঞ্জে ৪৫টাকা দরে প্রতি কেজি পেয়াজ বিক্রি হয়। এছাড়া প্রতি কেজি চিনি ৫০টাকা, প্রতি লিটার সয়াবিন তেল ৮০ টাকা, প্রতি কেজি ডাল ৫০টাকা দরে বিক্রি হয়। টিসিবির পণ্য ক্রয়ের প্রথমদিনে ১০০০ কেজি পেয়াজ, ৫০০ কেজি চিনি, ২০০ কেজি ডাল, ৩০০ লিটার সয়াবিন তেল বিক্রি করে নবীগঞ্জের টিসিবির ডিলার দাণী ষ্টোর।