নবীগঞ্জ-আউশকান্দি সড়ক নির্মাণে অনিয়ম

0
1

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ-আউশকান্দি সড়কে দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর পূর্ণ-নির্মাণ কাজ শুরু হলেও কাজের মান নিয়ে রয়েছেন নানা প্রশ্ন ! ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি ব্যাপক অনিয়মের মাধ্যমে পুরোধমে চালিয়ে যাচ্ছে সংস্কার কাজ। কিন্তু জনমনে রয়েছে নানা প্রশ্ন। এই আঞ্চলিক সড়কের কাজে নিম্ন মানের মালামালের পাশাপাশি পাথরের বদলে ব্যবহার করা হচ্ছে অতিরিক্ত বালু।

আর্চায্যজনক হলেও সত্য পূর্বের সড়ক থেকে দুই পাশে প্রায় ২ ফুট রাস্তা কমিয়ে ছোট করে হেজিং দেয়া হয়েছে। আর হেজিংয়ে ১ নাম্বার ইট দেয়ার কথা থাকলে ও দেয়া হচ্ছে ২/৩ নাম্বারের ইট। এছাড়াও সড়কে অতিরিক্ত ধুলোবালির কারণে প্রতিনিয়ত অসুস্থ হয়ে পড়ছেন এ রাস্তায় চলাচল করা যাত্রীগণ। নিয়মিত পানি দেয়ার কথা থাকলেও মাঝে মধ্যে পানি দিয়েই দায় এড়াতে মরিয়া ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। ধুলোবালির কারণে প্রায়দিন অসুস্থ হয়ে পড়ছেন এই সড়ক দিয়ে ছোট-বড় যানবাহন দিয়ে যাতায়াতকারী যাত্রীগণ। এঘটনায় আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে। কিন্তু এঘটনায় প্রশাসন রয়েছে নিরব ভূমিকায় তদারকির দায়িত্ব নিয়ে উঠছে নানা প্রশ্ন। অনেকেই জানান, কর্তৃপক্ষকে ম্যানেজ করেই ঠিকাদারী প্রতিষ্টান এ রখম অনিয়ম দুর্নীতি করছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নবীগঞ্জ-আউশকান্দি সড়কের কুর্শি ইউনিয়নের ফুটারমাটি এলাকায়সহ সড়কের বিভিন্নস্থানে পূর্বে সড়কের সীমানা থেকে উভয় পাশে প্রায় দুই ফুট ছোট করে ইট দিয়ে হেজিং করা হয়েছে। এছাড়াও পানি নিয়মিত না দেয়ার ফলে ধুলোবালির জন্য নষ্ট হয়ে যাচ্ছেন অনেক স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী ও অফিসিয়াল কর্মকর্তার পরিধানকৃত কাপর। সড়কের কাজে নিম্ন মানের মালামাল ব্যবহারের পাশাপাশি পাথরের বদলে ব্যবহার করা হচ্ছে অতিরিক্ত বালু । এতে তদারকির দায়িত্ব থাকা সংশ্লীষ্ট প্রশাসনিক দপ্তর কর্তৃপক্ষের তদারকি নিয়ে উঠছে নানা প্রশ্ন ।

এব্যাপারে এই সড়কের যাতায়াতকারী জুমান আহমেদ নামে এক কলেজ শিক্ষার্থী জানান, প্রতিদিন কলেজের যাওয়ার সময় ধুলোবালির কারণে কলেজ ড্রেস নষ্ট হয়ে যায়,এবং আমার কয়েকজন সহপাঠি অসুস্থ হয়ে পড়েছে।

সৈরত মিয়া নামে এক বৃদ্ধ ব্যক্তি জানান, আগের রাস্তা থাকি এ রাস্তা উভয় পাশে ছোট অই গেছে, রাস্তায় ধুলোবালির জন্য চলাচল মুশকিল হয়ে পড়েছে,এ বয়সেও ধুলোবালির মধ্য দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে দ্রুত এর সমাধানে কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছি।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গত বছরের শেষ দিকে নবীগঞ্জ-আউশকান্দি সড়কে প্রায় ২০ কিলোমিটার রাস্তা পূর্ণ-নির্মাণের জন্য ১৯ কোটি টাকার কাজ পায় লুৎফুর রহমান,ওয়াহিদুজ্জামান চৌধুরী ও আশরাফ উদ্দিন কামালের যৌথ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জন-জেবি।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রকৌশলী জহিরুল ইসলাম জানান, খোজ নিয়ে যদি সড়কে নিম্ন মানের মালামাল,পাথরের চেয়ে বালু বেশি এবং মাপের চেয়ে রাস্তা ছোট করা হয় তাহলে অবশ্যই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।