নবীগঞ্জ উপজেলার দ্বিতীয় শ্রেনীর ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা

0

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার দ্বিতীয় শ্রেনীর ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা । উপজেলার পানিউমদা ইউনিয়নে দ্বিতীয় শ্রেনীর ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনায় একমাত্র আসামী জাকারিয়া আহমেদ(১৮) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৮এপ্রিল) সকালে উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের দেবপাড়া বাজার থেকে গোপলার বাজার তদন্ত কেন্দ্রের একদল পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে ।

গ্রেফতারকৃত জাকারিয়া আহমেদ(১৮) উপজেলার পানিউমদা ইউনিয়নের আলীপুর গ্রামের আব্দুল ওয়াহিদ এর পুত্র।

জানা যায়, গত ২০ মার্চ উপজেলার পানিউমদা ইউনিয়নের শংকপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণির মেধাবী ওই ছাত্রীর পিতা একজন কৃষক। তিনি কৃষিকাজের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। তার পিতা বাড়িতে না থাকলে ওই ছাত্রীই নিকটবর্তী হাওরে চড়ানো গরু-বাছুর বাড়িতে নিয়ে আসেন।

বিশ্ব হিমোফিলিয়া দিবস

গত ২০ মার্চ বিকেলে পিতা বাড়িতে না থাকায় মা তাকে গরু আনতে বাড়ির পশ্চিমে মাঝের কান্দি হাওরে ওই ছাত্রীকে পাঠান। সেখানে তাকে একা পেয়ে জাকারিয়া নামের এক জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। জনৈক ব্যক্তি দূর থেকে ঘটনা দেখে এগিয়ে এলে ধর্ষক পালিয়ে যায়।

সাথে সাথে ওই ব্যাক্তি ছাত্রীকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে এলে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ওসিসিতে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় ২৬ মার্চ ধর্ষিতা শিশুর মা বাদী হয়ে নবীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার(১৮ এপ্রিল) সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোপলার বাজার তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো. কাওছার আলমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের দেবপাড়া বাজারে অভিযান চালিয়ে আসামী জাকারিয়াকে গ্রেফতার করে।

নবীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) গোলাম দস্তগীর গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ধর্ষণ মামলার আসামী জাকারিয়াকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।