পিএসজিতে এমবাপ্পের সতীর্থ হতে পারেন রোনালদো।

Cr7-PSG-JUB-Real-Neymar

রিয়াল মাদ্রিদের সর্বোচ্চ গোলদাতার রেকর্ডটি তাঁর অধিকারে। সান্তিয়াগো বার্নাব্যু ছেড়ে তুরিনে পাড়ি জমানো ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো রেকর্ড গড়ছেন জুভেন্টাসের জার্সিতেও। লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা হতে পারেননি, জুভেন্টাসকে শিরোপা জেতাতে রেখেছেন বড় ভূমিকা। আর সেই পথে সিরি ‘আ’তে দ্রুততম ৫০ গোল করার রেকর্ড গড়েছেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। রোমার বিপক্ষে ম্যাচটা শেষ হতে না হতেই তাঁকে ঘিরে শুরু হয় সতীর্থদের আনন্দ–উৎসব। শেষ ম্যাচে যদিও হেরেছে জুভেন্টাস, কিন্তু টানা নয়টি স্কুডেট্টো তো জিতেছে। সিরি ‘আ’র ইতিহাসে জুভেন্টাসের এই অর্জনের পেছনে গত দুই মৌসুমে রোনালদোর অবদানের কথা কারও অজানা নয়। কিন্তু তারপরও হঠাৎ করে উঠেছে প্রশ্ন, রোনালদো কি শেষ পর্যন্ত জুভেন্টাসে থাকছেন?

পর্তুগিজ তারকাকে নিয়ে প্রশ্নটা উঠেছে ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকীর একটি প্রতিবেদনের পর। রোনালদোর পরবর্তী গন্তব্য ঠিক হয়ে গেছে বলেই খবর ছেপেছে তারা। সেটা কোথায়? ফ্রান্স ফুটবলের প্রতিবেদন বলছে পিএসজি। আসছে মৌসুমেই নাকি নেইমার–এমবাপ্পেদের সতীর্থ হতে পারেন রোনালদো।

রোনালদো অবশ্য অনেকবারই বলেছেন, জুভেন্টাসে সুখেই আছেন। লিগ শিরোপা জয়ের উৎসবে সতীর্থদের সঙ্গে বেশ হাসিখুশিও ছিলেন। দলকে চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা দৌড়ে নিজেকে উজাড় করে দেবেন বলেও ঘোষণা দিয়েছেন। কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে প্রথম লেগে জুভেন্টাস হেরেছিল অলিম্পিক লিঁওর কাছে। কিন্তু আগামী শুক্রবার ফিরতি লেগ জয়ের জন্য জুভেন্টাসও রোনালদোর দিকেই মূলত তাকিয়ে থাকবে। খেলাটা যেহেতু হবে পর্তুগালে, ম্যাচটিকে নিশ্চয়ই রোনালদো রাঙাতে চাইবেন। এরই মধ্যে কি না এল তাঁর জুভেন্টাস ছাড়ার সম্ভাবনার খবর। ফ্রান্স ফুটবল লিখেছে পিএসজিতে যাওয়ার ভাবনাটা নাকি রোনালদোর মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে কয়েক মাস ধরে।

ইংল্যান্ড, স্পেন ও ইতালির সাফল্যের পর এবার ফ্রান্সে যেতে চাইছেন রোনালদো। অন্তত এমনটাই দাবি করেছে ফ্রান্স ফুটবল। ফ্রান্সের ফুটবল লিখেছে চ্যাম্পিয়নস লিগে এফসি লোকোমোটিভের বিপক্ষে ২-১ গোলে জেতার পরও দলের পারফরম্যান্স নিয়ে খুশি ছিলেন না রোনালদো। ম্যাচের পর নৈশভোজে দলের নিজের অসুন্তুষ্টির কথা বলেও ছিলেন। ওই রাতেই নাকি পিএসজিতে যাওয়ার বিষয়টি মাথায় ঢোকে তাঁর। এ ছাড়া এমবাপ্পে ও নেইমারের সঙ্গেও রোনালদোর সম্পর্কটা বেশ ভালো। এসবও তাকে ওই ক্লাবে যেতে উৎসাহিত করছে। তুরিনের চেয়ে প্যারিসে থাকতেই নাকি বেশি ভালো লাগে রোনালদোর।

ফ্রান্স ফুটবল রোনালদোর খুব ঘনিষ্ঠ জনদের উদ্ধৃতি দিয়ে একটা টুইটও করেছে সম্প্রতি। যেখানে বলা হয়েছে, ‘ক্রিস্টিয়ানো অসন্তষ্ট নন, কিন্তু সে এখানে খুশিও নন।’ আর জুভেন্টাস ছেড়ে যাওয়ার ব্যাপারটাও তারা তাই একেবারে উড়িয়ে দিচ্ছেন না। তবে করোনা পরিস্থিতিতে দলবদলের বিষয়গুলো একটু জটিলই হয়ে উঠতে পারে। বিশেষ করে আর্থিক বিষয়টা। কিন্তু রোনালদো যদি চান, ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগের আরেকটি শিরোপা নিজের ট্রফি–কেসে জমা করতে তাহলে তাঁকে আটকে রাখা কঠিনই হবে জুভেন্টাসের জন্য!