বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী সংযুক্ত আরব আমিরাত

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দু’টি প্রধান কোম্পানি লুলু গ্রুপ ইন্টারন্যাশনাল এবং এনএমসি গ্রুপ আজ বাংলাদেশে বিশেষত- স্বাস্থ্য সেবা, হোটেল, বিপনি বিতান ও পর্যটন খাতে বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে আজ তাঁর হোটেল স্যুটে সৌজন্য সাক্ষাতের সময় লুলু গ্রুপের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউসুফ আলী এবং এনএমসি গ্রুপরে প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ড. বি আর শেঠি এ আগ্রহ প্রকাশ করেন।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরাতের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের সাক্ষাতের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের অবহিত করেন।

লুলু গ্রুপের চেয়ারম্যান বলেন, পর্যটন ও বৃহদাকার বিপণি বিতান খাতে বিনিয়োগের জন্য সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র হিসাবে বাংলাদেশ বিবেচিত হচ্ছে এবং ঢাকা বা সংলগ্ন এলাকায় এজন্য জমি চান।

এই গ্রুপটির একটি বিপনি বিতান নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে এবং তা বাস্তবায়িত হলে প্রায় পাঁচ হাজার মানুষের জন্য সুযোগ সৃষ্টি হবে। এছাড়াও তাদের একটি কনভেনশন সেন্টার ও তিনহাজার গাড়ির জন্য পার্কিং সুবিধা সৃষ্টির পরিকল্পনা রয়েছে।

ইউসুফ আলী বিভিন্ন দেশে লুলু গ্রুপের বাস্তবায়িত বিভিন্ন প্রকল্পের কথা তুলে ধরেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, দেশের উন্নয়নের লক্ষ্যে বিদেশী বিনিয়োগকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রী প্রয়োজনীয় জমি বরাদ্দের ব্যাপারে তাদেরকে আশ্বস্ত করেন এবং তাদের বাণিজ্যিক পরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সরেজমিন অভিজ্ঞতা লাভের জন্য বাংলাদেশ সফরের আহবান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্প এবং বিশেষ অর্থতৈনিক অঞ্চলে বিনিয়োগের জন্য লুলু গ্রুপের চেয়ারম্যানের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, শুল্কমুক্ত সুবিধাসহ বিদেশী বিনিয়োগকারিদের জন্য খুবই আকর্ষনীয় সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে বাংলাদেশ।

এনএমসি গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা কোম্পানির নীতি ‘বিনামূল্যে চিকিৎসা, মানসম্মত, সাশ্রয়ী ও নৈতিকতা অনুশীলন’-এর ভিত্তিতে বাংলাদেশে মানবিক কার্যক্রম ও স্বাস্থ্যসেবা সম্প্রসারণের আগ্রহ প্রকাশ করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এনএমসি গ্রুপের আগ্রহকে স্বাগত জানিয়ে তাদেরকে ক্যান্সার ও হৃদরোগের চিকিৎসার জন্য হাসপাতাল নির্মাণের লক্ষ্যে প্রস্তাব নিয়ে আসার আহবান জানান।

এনএমসি’র চেয়ারম্যান বলেন, পরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনার জন্য তারা বাংলাদেশ সফর করবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চলমান আরব আমিরাত সফরকে সফল-অভিহিত করে প্রেস সচিব বলেন, এই সফর আকাঙ্খার চাইতেও বেশি ফলদায়ক হবে।

বৈঠককালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমেদ এবং প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব মো. নজিবুর রহমান এসময় উপস্থিত ছিলেন।