১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
দুপুর ১:১০

জনপ্রিয় ৫ সংবাদ

আরো কিছু সংবাদ

বামকান্দি গ্রামে ছোবহান হত্যায় আসামী গ্রেফতার

হবিগঞ্জের  চাঞ্চল্যকর ছোবহান হত্যা মামলার ০৫ জন আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৯।

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এলিট ফোর্স হিসেবে আত্মপ্রকাশের সূচনালগ্ন থেকেই বিভিন্ন ধরনের নৃশংস ও ঘৃণ্যতম অপরাধ বিশেষ করে মাদক উদ্ধার, ধর্ষণ, মানবপাচার, হত্যা মামলা, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, জঙ্গি দমন, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, বনদস্যু/জলদস্যু, ডাকাত ও ছিনতাইকারীসহ বিভিন্ন অপরাধীদের গ্রেফতারে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। হত্যাসহ যে কোন ধরনের সহিংসতা প্রতিরোধে র‌্যাবের প্রতিটি সদস্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়ে জনসাধারণের জন্য একটি নিরাপদ বাসযোগ্য সমাজ তথা দেশ বিনির্মাণে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

বিগত ০৭ মার্চ ২০২৪ খ্রিঃ তারিখ সকাল আনুমানিক ০৮:৩০ ঘটিকার সময় হবিগঞ্জ জেলার সদর থানাধীন উত্তর বামকান্দি বাজারে বিবাদীরা রফিক মিয়া নামে একজনকে মারপিট করে গুরুতর জখম করে।

উক্ত সংবাদ পেয়ে ভিকটিম আব্দুস ছোবহানসহ অন্যান্যরা জখমী রফিক মিয়াকে বাঁচাতে বাজারের উদ্দেশ্যে রওনা হলে বিবাদীরা সকাল আনুমানিক ০৯:৩০ ঘটিকার সময় হবিগঞ্জ সদর থানাধীন উত্তর বামকান্দি বাজারে যাওয়ার রাস্তায় ভিকটিম ও অন্যান্যদের এলোপাতাড়ি মারধরের মাধ্যমে গুরুতর জখম করে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরবর্তীতে, আশেপাশের লোকজন ভিকটিমকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে ভিকটিম চিকিৎসারত অবস্থায় মৃত্যবরণ করেন।

এই ঘটনায় ভিকটিমের মামা বাদী হয়ে ৪৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ৪০/৪৫ জনের নামে হবিগঞ্জ সদর থানায় গত ১০ মার্চ ২০২৪ খ্রিঃ তারিখ একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। (মামলা নং- ০৭/৪৭, তারিখ- ১০/০৩/২০২৪ খ্রিঃ)।

চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি মিডিয়ার মাধ্যমে হবিগঞ্জসহ দেশব্যাপী ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে। এরই প্রেক্ষিতে আসামীদের আইনের আওতায় আনতে র‍্যাব-৯ চা ল্যকর এই হত্যাকান্ডের ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং গোয়েন্দা তৎপরতা জোরদার করে।

এরই ধারাবাহিকতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৯, সিপিসি-৩, শায়েস্তাগঞ্জ ক্যাম্প, হবিগঞ্জ এর একটি আভিযানিক দল গত ২৯ মার্চ ২০২৪ খ্রিঃ তারিখ হবিগঞ্জ জেলার শায়েস্তাগঞ্জ থানাধীন এলাকা হতে চা ল্যকর এই হত্যা মামলার এজাহারনামীয় ০৫ জন আসামীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিরা- ১। আঃ জলিল (৪০), পিতা- মৃত আইন উল্লা, ২। স্বপন মিয়া (২৭), পিতা- মৃত ওয়াব উল্লা, ৩। মুরশেদ মিয়া (৩২), পিতা- মৃত আবিদ উল্লা, ৪। আতাউর মিয়া (২২), পিতা- আনছব আলী, ৫। আঃ হাই (৪০), পিতা- আঃ রহমান, সর্ব সাং- বামকান্দি, থানা- হবিগঞ্জ সদর, জেলা- হবিগঞ্জ।

পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষ্যে গ্রেফতারকৃত আসামীদের হবিগঞ্জ জেলার সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: লাখাইর ফরিদপুর-বাঘাইরা রাস্তায় কালভার্ট না থাকায় জন ভোগান্তি চরমে

এছাড়াও, উক্ত মামলার অন্যান্য পলাতক আসামীদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে র‌্যাব-৯ এর চলমান গোয়েন্দা তৎপরতা ও অভিযান অব্যাহত থাকবে।