বিয়েতে মাইক বাজানোর অপরাধে মাধবপুরে সমাজচ্যুত ৫ পরিবার !

বিয়েতে মাইক বাজানোর অপরাধে মাধবপুরে সমাজচ্যুত ৫ পরিবার

মাধবপুরে বিয়ে বাড়িতে উচ্চ শব্দে মাইক বাজানোয় ও মসজিদের ইমামের বেতন না দেয়ায় ৫ পরিবারকে সমাজচ্যুত করার অভিযোগ উঠেছে মসজিদ কমিটি ও গ্রাম্য মাতব্বরদের বিরুদ্ধে৷

এ ঘটনায় সম্পতপুর গ্রামের আবিদ মিয়া মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন- মসজিদের চাঁদা না দেয়ায় মসজিদ কমিটির লোকজন তাকে সমাজচ্যুত করেছে। কেউ যাতে তাদের সঙ্গে মেলামেশা না করে সে ব্যাপারে গ্রামবাসীকে সতর্কও করেছে তারা।

তবে মসজিদ কমিটি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিয়ে বাড়িতে উচ্চ শব্দে মাইক বাজানোর কারণে গ্রামের অসুস্থ রোগীদের অসুবিধা ও শব্দ দূষণের কারণে ওই পরিবারকে মাইক না বাজাতে নিষেধ করায় তারা মসজিদ কমিটি ও গাম্য মাতব্বরদের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অসত্য অভিযোগ করেছে।

এ বিষয়ে মসজিদ কমিটির সভাপতি এমদাদ উল্লাহ জানান, গত ৪ সেপ্টেম্বর আবিদ মিয়ার মেয়ের বিয়েতে উচ্চশব্দে মাইক বাজাতে শুরু করলে গ্রামের অসুস্থ রোগী ও বৃদ্ধ লোকদের মধ্যে সমস্যা দেখা দেয়। গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে বিকট শব্দে মাইক না বাজাতে নিষেধ করায় আবিদ মিয়া মসজিদ কমিটির লোকের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছে।

এর আগে বিয়ে বাড়িতে বিকট শব্দে মাইক বাজানোর কারণে হৃদরোগীদের অনেক সমস্যা দেখা দেয়। এরপর থেকে গ্রামবাসী সিদ্ধান্ত নেয় বিয়ে বাড়িতে বিকট শব্দে মাইক বাজানো যাবে না।

স্থানীয় চেয়ারম্যান ফারুক পাঠান বলেন, মসজিদের চাঁদা সংক্রান্ত ও মাইক বাজানোকে কেন্দ্র করে একটি ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। তা মীমাংসা করে দেয়ার জন্য উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাসনুভা নাশতারান জানান, অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে উভয়পক্ষকে বৃহস্পতিবার সকালে তার কার্যালয়ে ডাকা হয়েছে। প্রকৃত ঘটনা শুনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।