২৫ নভেম্বর (বুধবার) ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ
28 C
Habiganj
২৫ নভেম্বর (বুধবার) ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ
হোম শায়েস্তাগঞ্জ মাধ্যমিক পর্যায়ে অনলাইন ক্লাসে প্রথম স্থান অর্জনকারী শায়েস্তাগঞ্জের দেবযানী ধর

মাধ্যমিক পর্যায়ে অনলাইন ক্লাসে প্রথম স্থান অর্জনকারী শায়েস্তাগঞ্জের দেবযানী ধর

সৈয়দ আখলাক উদ্দিন মনসুরঃ হবিগঞ্জ জেলায় মাধ্যমিক পর্যায়ে অনলাইন ক্লাস গ্রহণকারী – ২০২০ এর পুরস্কার হিসেবে সম্মাননা স্মারক পেয়েছেন হবিগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী শায়েস্তাগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা দেবযানী ধর বর্ষা।

গত বৃহস্পতিবার (২৯ শে অক্টোবর) সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসক সভাকক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) উম্মে ইসরাত এর সভাপতিত্বে ৪১ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহের খাদ্য নিরাপত্তা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ব্যবহার এবং করোনার করাল থাবা থেকে শিক্ষা ব্যবস্থাকে মুক্ত রাখতে প্রায় সাত মাস যাবত একঝাক প্রাণবন্ত শিক্ষক হবিগঞ্জ জেলা মাধ্যমিক পর্যায়ে অনলাইনে ক্লাস দিয়ে যাচ্ছে।

এছাড়া শিক্ষকরা নিরলসভাবে কাজে থাকার জন্য জেলা প্রশাসন অনলাইন ক্লাস গ্রহণকারীদের সেরা শিক্ষক নির্বাচিত শীর্ষক সেমিনারে ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তার হাতে এর সম্মাননা তুলে দেন হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান।

এদিকে মাধ্যমিক পর্যায়ে প্রথম স্থান অর্জনকারী হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের লেঞ্জাপাড়া মহল্লায় স্বর্গীয় ডাঃ বিজন কুমার ধর এর ভাতিজি এবং শায়েস্তাগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিক দেবযানী ধর বর্ষা এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ক্লাস নিয়ে মুজিব শতবর্ষে এ সম্মাননা স্মারক গ্রহণ করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও এটু আই পরিচালিত ঘরে বসে শিখি, বাংলাদেশ আলোকিত মাধ্যমিক শিক্ষক পেইজ, বাংলাদেশ অনলাইন মাধ্যমিক স্কুল সহ মোট শতাধিক মাধ্যমে তার অনলাইন ক্লাস প্রচার হয়েছে।

বর্তমানে শিক্ষাবিষয়ক উন্নয়ন নিয়ে দেশ ও বিদেশ স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের সাথে অনলাইনে কাজ করে যাচ্ছে। পাশাপাশি নিজের বাসায় বিদ্যালয়ে শিক্ষকদের ক্লাস নেওয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন।

করোনার এই ক্রান্তিকালে তার বিদ্যালয়ে নিজস্ব পেইজে ও হোয়াটস আপ এবং মেসেঞ্জার গ্রুপে সবসময় হোমওয়ার্ক প্রদান করেন। প্রতিটি ক্লাসে ১০ জন করে শিক্ষার্থীদের মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করে বাড়ির কাজ প্রদান করেন।

গত সেপ্টেম্বর মাসে হবিগঞ্জ জেলা আইসিটি এ্যাম্বাসেডর সেরা হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেন। তিনি ক্লাস ছাড়া বাংলাদেশে শিক্ষার্থীরা দেখছেন ও বাড়ির কাজ পাঠাচ্ছেন।

করেনাকালীন সময়ে যাতে শিক্ষার্থীরা ঝিমিয়ে বা ঝড়ে না পড়ে সেজন্য তার এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্ঠা। জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার কার্যালয় থেকে যাচাই বাচাই করে তাকে প্রথম স্থান হিসেবে নির্বাচিত করেন।

এই মেধাবী শিক্ষিক দীর্ঘদিন যাবৎ শায়েস্তাগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে সুনাম ও দক্ষতার সাথে শিক্ষকতা চালিয়ে যাচ্ছেন।

সম্পর্কিত সংবাদ

95,640FansLike
1,432FollowersFollow
2,458FollowersFollow
2,145SubscribersSubscribe

সর্বশেষ সংবাদ