মানবতা বিরোধী অপরাধ মামলার স্বাক্ষীকে কুপিয়ে রক্তাক্ত করেছে প্রতিপক্ষ

0
2

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়নে মামদপুর গ্রামে মানবতা বিরোধী অপরাধ মামলার স্বাক্ষী আব্দুল আলী(৬৬) কে কুপিয়ে রক্তাক্ত করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

গত শুক্রবার রাত ৯টার দিকে স্থানীয় মামদপুর গ্রামের বিয়ানীবাজারে এঘটনা ঘটে। পুলিশ ও

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উল্লেখিত সময় মানবতা বিরোধী অপরাধ মামলার স্বাক্ষী মামদপুর গ্রামের মৃত আরজদ আলীর পুত্র আব্দুল আলীর সাথে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে বাক-বিতন্ডা হয় একই গ্রামের ছনওয়ার মিয়ার পুত্র মুজিবুর রহমানের সাথে।

এঘটনার জের ধরে বিয়ানীবাজারে একা পেয়ে মুজিবুর রহমান নেতৃত্বে মুহিত মিয়া,সোহেল মিয়া,এমরান মিয়া রকি মিয়া,রাব্বি মিয়ারা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে এলোপাতাড়ি হামলা চালায়।

এসময় আব্দুল আলীকে কুপিয়ে রক্তাক্ত করে প্রতিপক্ষের লোকজন। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এব্যাপারে যুদ্ধাপরাধ মামলার স্বাক্ষী আব্দুল আলী রক্তাক্ত অবস্থায় বলেন, যুদ্ধাপরাধ মামলার আসামী গোলাপের বিরুদ্ধে স্বাক্ষী হওয়ায় সেই আক্রোশেই আমার উপর হামলা চালানো হয়েছে।

এব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, যুদ্ধাপরাধ মামলার স্বাক্ষী আব্দুল আলী একই গ্রামের মুজিবুর রহমানকে গালাগালি করেছেন দাবী করে আব্দুল আলীর কাছে গালিগালাজ করার কারণ জানতে চান মুজিবুর রহমান । এসময় আব্দুল আলী গালিগালাজ করেননি বলে জানান। এঘটনার জের ধরে বাক-বিতন্ডা হয় । এক পর্যায়ে আব্দুল আলীর উপর হামলার ঘটনা ঘটে।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ২৩ মার্চ মুক্তিযুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে এনে নবীগঞ্জ উপজেলার গজানাইপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল খায়ের গোলাপ মিয়া (৬৬)সহ তিন আসামির বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন গজনাইপুর ইউনিয়নের লোগাঁও গ্রামের রইছ উল্লার মেয়ে বীরাঙ্গনা সুকুরী বিবি (৬৫)।