‘লেখকরা জাতির সূর্যসন্তান। দেশ, জাতি ও মানুষের যে কোন বিপদে বা অন্যায়ের বিরুদ্ধে তারা সবার আগে লিখনী দিয়ে প্রতিবাদ করেন’ —ব্যারিস্টার মো: মোজাক্কির হোসাইন

Chief-Guest-Nabigonj

বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের বিজ্ঞ আইনজীবী নবীগঞ্জ তথা সিলেটের কৃতি সন্তান ব্যারিস্টার মো: মোজাক্কির হোসাইন বলেন- ‘লেখকরা জাতির সূর্যসন্তান। দেশ, জাতি ও মানুষের যে কোন বিপদে বা অন্যায়ের বিরুদ্ধে তারা সবার আগে লিখনী দিয়ে প্রতিবাদ করেন। তাঁদের লেখা আমাদের পথ দেখায়, এগিয়ে যেতে সাহায্য করে।’ বিশিষ্ট লোকগবেষক কবি আবু সালেহ আহমদের জন্মদিন উপলক্ষে নবীগঞ্জ উপজেলার প্রথম পত্রিকা ‘মাসিক গোপলা’র আয়োজনে সুহৃদ আড্ডায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঐতিহ্যবাহী ছড়া পরিষদ সিলেটের সহ-সভাপতি ছড়ার মহাজন অজিত রায় ভজন বলেন-‘মানুষ বেঁচে থাকে তার কর্মের মাধ্যমে। আর কবি আবু সালেহ যুগ যুগ বেঁচে থাকবেন তাঁর সাহিত্য কর্মের মাধ্যমে। তাঁর সাহিত্যকর্ম যুগ যুগ ধরে তাঁকে বাঁচিয়ে রাখবে।’ ২৮ ফেব্রুয়ারী সন্ধ্যায় সিলেট নগরীর তালতলাস্থ সুরমা টাওয়ারে অনুস্টিত মাসিক গোপলা’র উপদেষ্টা বিশিষ্ট গবেষক কাজী শাহেদ বিন জাফরের সভাপতিত্বে মাসিক গোপলা সম্পাদক ‘মানুষমন্ত্র’র কবি মিজান মোহাম্মদের উপস্থাপনায় এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সময়ের সাহসী অনলাইন পত্রিকা বজ্রকন্ঠের প্রধান নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আখতারুজ্জামান মিজান, জয়বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিষদ সিলেট শাখার আহবায়ক হরিপদ চন্দ, দক্ষিণ সুরমা উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সাংবাদিক শাহ মো: ইমাদ উদ্দিন নাসিরী।

এছাড়া আড্ডায় বক্তব্য রাখেন- লালরিকশার কবি জালাল জয়, আর্থ অফ অটোগ্রাফ সম্পাদক আবদুল কাদির জীবন, কবি খালিদ সাইফুল্লাহ, কবি কুবাদ বখত চৌধুরী রুবেল, কবি শামীম আহমদ।

সুহৃদ আড্ডার শুরুতে কবির জীবন ও কর্মের উপর মূল প্রবন্ধ পাঠ করে মাসিক চন্দ্রবিন্দু সম্পাদক মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম। এবং আড্ডা শেষে কবি তাঁর অনুভূতিকে ব্যক্ত করেন ও কেক কেটে কবির জন্মদিন উৎযাপন করা হয়।