সীমান্ত অপরাধ ছেড়ে আলোর পথে ফিরলেন ২৪ যুবক

সুনামগঞ্জ সীমান্ত অপরাধ ছেড়ে আলোর পথে ফিরলেন ২৪ যুবক

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জ সীমান্ত অপরাধ ছেড়ে আলোর পথে ফিরলেন ২৪ যুবক। ২৮ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন বাংলাদেশ (বিজিবি) অধিনায়কের নেয়া উদ্যোগে আলোকিত সীমান্ত কর্মসূচির আওতায় সীমান্তে নানা অপরাধে যুক্ত এমন ২৪ ব্যক্তিকে কর্মসংস্থানের মাধ্যমে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সোমবার বিজিবির ২৮ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মাকসুদুল আলমের উপস্থিতিতে বিজিবির সিলেট সেক্টরের উপপরিচালক ও সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মো. শহিদুল ইসলাম (পিএসসি) এর প্রধান অতিথি ছিলেন।

তারা দোয়ারাবাজার বিজিবির বাঁশতলা বিওপিতে আলোর পথে ফিরে আসাদের পরিবারবর্গের হাতে নগদ অর্থ, রেশনসামগ্রী তুলে দেন।

এ ছাড়া কর্মসংস্থানের মাধ্যমে এসব ব্যক্তিকে পুনর্বাসনের লক্ষ্যে ২৮ বিজিবির উদ্যোগে ট্রাস্ট ব্যাংকের ঋণ সুবিধা প্রদান, বর্ডার হাটে (সীমান্ত বাজার) ব্যবসা পরিচালনার জন্য ‘আলোর পথের’ সদস্যদের কার্ড প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ, তিনজনকে বিজিবিতে অস্থায়ী নিয়োগের আশ্বাস প্রদান করা হয়।

একই দিন তিনজনকে চায়ের স্টল খোলার জন্য নগদ অর্থ প্রদান, ১৯ জনকে রেশনসামগ্রী প্রদান, একজনকে বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজে চাকরির ব্যবস্থা ও সম্প্রতি সীমান্তের ওপারে ভারতীয় খাসিয়াদের গুলিতে নিহত নুরু মিয়ার পরিবারের সদস্যকে আর্থিক সহায়তা ও রেশনসামগ্রী প্রদান করা হয়।

এ উপলক্ষে এক মতবিনিময়সভায় বিজিবি সেক্টর কমান্ডার আলোর পথে ফিরে আসা প্রত্যেককে পর্যায়ক্রমে কর্মসংস্থান তৈরি করে দেয়ার আশ্বাস প্রদান করেন।

ইতিপূর্বে ২৮ বিজিবি সুনামগঞ্জ ব্যাটালিয়ন অধিনায়কের অঙ্গীকার অনুযায়ী আলোর পথে ফিরে আসা ১৯ ব্যক্তিকে কর্মসংস্থান তৈরির লক্ষ্যে সীমান্তের বিজিবির বাঁশতলা বিওপিতে গত ৪ মার্চ থেকে ১০ পর্যন্ত এক সপ্তাহ ইলেকট্রিশিয়ান কাজের ওপর প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়।

প্রসঙ্গত ‘আলোকিত সীমান্ত কর্মসূচির’ আওতায় ২৮ বিজিবি সুনামগঞ্জ কর্তৃক গত ২৬ ফেব্রুয়ারি সীমান্ত এলাকায় নানা অপরাধ কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত এমন ২৪ ব্যক্তি চিহ্নিত করা হয়।

তাদের জীবনের বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করে আত্মসমর্পণ করেন। তারা ‘আলোর পথে’ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবনে ফেরত আসার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করলে ওই দিন এক অনুষ্ঠানে ২৮ বিজিবি অধিনায়ক, মেডিক্যাল অফিসার, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং সাংবাদিকসহ অন্যরা তাদের ফুল দিয়ে বরণ করেন।