হবিগঞ্জে আপন ভাইকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা

হবিগঞ্জে সম্পত্তির লোভে আপন ছোট ভাইকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে হবিগঞ্জ পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কমিশনার আব্দুল আউয়াল মজনু।

গুরুতর আহত অবস্থায় তার ছোট ভাই পলাশকে সিলেট ওসামানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আহত পলাশ হবিগঞ্জের রাজনগর আবাসিক এলাকার আব্দুল হাকিম মিয়ার পুত্র। সে হবিগঞ্জের পুরাতন হাসপাতাল রোডের প্রাইম ডায়াগনস্টিক সেন্টারে জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত।

ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার (৭মার্চ) সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে। আহত পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, কমিশনার আব্দুল আউয়াল মজনু সম্পত্তির জন্য প্রায়ই তার বাবাসহ পরিবারের লোকজনকে জ্বালাতন করত। তার নামে সহায় সম্পত্তি লিখে দেয়ার জন্য তাদেরকে প্রায়ই চাপ প্রয়োগ করত কমিশনার মজনু। ঘটনার সময় মজনু নেশা খেয়ে তার বৃদ্ধ বাবাকে গালিগালাজ করতে থাকে।

তার ছোট ছেলে পলাশ এসে বাবাকে গালিগালাজের কারণ জানতে চাইলে এক পর্যায়ে কমিশনার মজনু তার কাছে থাকা দাঁড়ালো ছুরি দিয়ে তার ভাইকে আঘাত করে। পরে আশেপাশের মানুষ দৌড়ে এগিয়ে এসে আহত পলাশকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করার নির্দেশনা প্রদান করেন।

আহত পলাশের বাবা আব্দুল হাকিম জানিয়েছেন, কমিশনার মজনু প্রায়ই নেশা খেয়ে বাসায় এসে উৎপাত করত। তার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগে মামলা রয়েছে।