হবিগঞ্জে ঈদকে সামনে রেখে কাপড়ের মূল্য দ্বিগুন

0
3

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জ জেলা শহরের কাপড়ের বিতানগুলিতে রমজানের ঈদকে সামনে রেখে ব্যবসায়ীরা কাপড়ের মূল্য দ্বিগুন করে দিয়েছে।

প্রতিটি দোকানে বোর্ড টানিয়ে লিখে রাখা হয়েছে  “এক দর”। ক্রেতাদের দর কষাকষির  কোন সসুযোগ নেই। পছন্দ হলেই নিতে হবে দ্বিগুন দামে। দুই হাজার টাকার একটি শাড়ী দ্বিগুন দাম বাড়িয়ে শাড়ীর গায়ে ব্যবসায়ীরা লিখে রেখেছেন চার হাজার টাকা।

বিষয়টি হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবির মুরাদের নজরে পড়লে তিনি অতিরিক্ত মুনাফা রোধে শহরের বিভিন্ন কাপড়ের দোকানে অভিযান চালান।

বৃহস্পতিবার (৯ মে) সকাল ১১ টায় তিনি ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে অভিযান চালান তিনি। অভিযান কালে শহরের ঘাটিয়া বাজার এলাকার কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে কাপড়ের মূল্য যাচাই করে দেখেন কিছু কিছু কাপড়ে একশ’ শতাংশ মুনাফা ধরে বিক্রয় মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

অর্থাৎ, ২ হাজার টাকায় কেনা কাপড়ের বিক্রয় মূল্য ধরা হয়েছে ৪ হাজার টাকা। আবার একই কাপড়ের মূল্য একেক প্রতিষ্ঠানে একেক রকম। পরে ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে আগামী দুই দিনের মধ্যে মূল্য পূনঃনির্ধারণের শর্তে তাদেরকে সতর্ক করে দেন তিনি।

হবিগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা

এর আগে গত ২৯ এপ্রিল জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবির মুরাদের সভাপতিত্বে জেলা বিশেষ আইনশৃংখলা সভায় কাপড় ব্যবসায়ীদের সাথে নিয়ে শহরের কাপড়ের বিতান গুলোতে ১-২ দুই হাজার টাকা মূল্যের কাপড় বিক্রিতে সর্বোচ্চ ২০%, ২-৫ হাজার টাকার মূল্যের কাপড় বিক্রিতে ১৫% ও ৫-১০ হাজার মূল্যের কাপড় বিক্রিতে ১০% লাভের বিষয়টি নিশ্চিত করেন তিনি। এছাড়াও সাধারণ ক্রেতাদের কাছ থেকে ওই লাভ্যাংশের অধিক মূল্য আদায় করা হলে বিপনীর ব্যবসায়ীদের কাপড় দ্রব্যদি ক্রয়ের মূল্য তালিকা দেখে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে তাদের জরিমানা করা হবে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।