নবীগঞ্জে ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীর গাড়ীবহরে হামলা, পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

এম, এ অাহমদ অাজাদ, নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ):
নবীগঞ্জে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ড. রেজা কিবরিয়ার গাড়ি বহরে হামলার জের ধরে পাল্টা নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জামাল আহমদ সুমনে উপর হামলা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তাৎ ক্ষনিকভাবে স্থানীয় আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়েছে।

রেজা কিবরিয়া তার বাড়িতে সাংবাদিকদের ব্রিফিং করে হামলার জন্য আওয়ামীলীগ কে দায়ী করেছেন।

তিনি বলেছেন হামলা আশংকায় ইনাতগঞ্জ বাজারের পথসভা বাতিল করে বাড়ি ফিরে এসেছেন। আওয়ামীলীগের প্রার্থী গাজী মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ ওরফে মিলাদ গাজী বলেছেন তার লোকজন হামলা করেনি। বরং রেজার লোকজন তার নেতাকর্মীদের উপরে হামলা করেছে।

আজ বুধবার বিকালে হবিগঞ্জ-১(নবীগঞ্জ-বাহুবল) আসনে ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের বান্দের বাজার এলাকায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনীত প্রার্থী ড. রেজা কিবরিয়ার নির্বাচনী প্রচারণার সময় তার গাড়িবহর রার উপর রেখে পথসভা করার সময় যান জটের সৃষ্টি হয়।

এনিয়ে স্থানীয় জনতার সাথে সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ফখরুল ইসলাম পান্না কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে কিছু লোকজন উত্তেজিত হয়ে তার উপর হামলা করেন। এসময় সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ফখরুল ইসলাম পান্ন কে লাঞ্চিত করা হয়।

ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার সন্ধ্যায় ইনাতগঞ্জ ইউপির বান্দের বাজার নামক স্থানে। পরে এর জের ধরে সন্ধারাতেই নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জামাল আহমদ সুমন স্থানে বান্দের বাজারে আসলে ড.রেজা কিবরিয়ার লোকজন তার উপর হামলা করে। এখবর পেয়ে স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ মিছিল করে এক পথসভা করেন।

ইনাতগঞ্জ ইউপি আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল খালিকের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন,সালাহ উদ্দিন,জসিম উদ্দিন,নোমান হোসেন,জামাল হোসেন সুমন, ফযসল আহমদ, রাসেল আহমদ,হোসাইন আহমদ প্রমূখ।

জানাযায়, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ড. রেজা কিবরিয়া পথসভা শেষে তার গ্রামের বাড়ি জালালসাপ ফেরার পথে তার সাথে থাকা সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ফখরুল ইসলাম পান্না একটি মোটর সাইকেল নিয়ে যানজট ডিঙ্গিয়ে বেপরোয়া গতিতে সামনে যাবার সময় জনতার সাথে ঝামেলা সৃষ্টি হয়।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, ওই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী গাজী মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ ওরফে মিলাদ গাজীর লোকজন ও আওয়ামীলীগ পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে হামলার করেছে।

তিনি আরো বলেন, আমি খবর পেয়েছি ইনাতগঞ্জসহ অন্যান্য জায়গায় আওয়ামীলীগের লাটি সোটা নিয়ে হামলার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছে। আমি নিজের নিরাপত্তা নিয়ে শংকিত অবস্থায় আছি। নিরাপত্তাহীনতার জন্য ইনাতগঞ্জ বাজারে নির্ধারিত পথসভা বাতিল করেছি।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী গাজী মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ ওরফে মিলাদ গাজীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,আমি খবর নিয়ে জেনেছি আমার দলের লোকজনের উপরে রেজার লোকজন হামলা করেছে। রাস্তার উপর গাড়ির রেখে যানজট সৃষ্টি করে জনসভা করলে জনতা বাধা দেয় এতে তার ক্ষিপ্ত হয়ে আমার যুবলীগের নেতার উপর হামলা করেছে। আমার দলের নেতাকর্মী এরকম আচরণ করতে পারে না এটা কোন বিছিন্ন ঘটনা। এখানে সম্প্রীতির পরিবেশ বিরাজ করছে।

এব্যাপারে হবিগঞ্জ-১(নবীগঞ্জ-বাহুবল) আসনের দায়িত্বে নিয়োজিত সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ আলম চৌধুরী বলেন, আমরা খোঁজ খবর নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নিবো। আমরা চাই সবাই নিরাপদে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা করেন। রেজা গাড়ি বহরের কোন হামলা হয়নি। আমরা সব প্রার্থীর নিরাপত্তার বিষয়ে খোঁজ খবর নিতেছি। এহামলার খবর কোন প্রার্থী বা রেজা সাব আমাদেরকে জানাননি।