১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
দুপুর ২:৪০

জনপ্রিয় ৫ সংবাদ

আরো কিছু সংবাদ

চা বাগান থেকে বিলীন হচ্ছে ছায়া বৃক্ষ , দেখার যেন কেউ নেই

পুলিশ প্রশাসন নিরব থাকায় হবিগঞ্জের চার উপজেলায় বিভিন্ন চা-বাগান থেকে প্রতিদিন বিলীন হচ্ছে ছায়াবৃক্ষ । দেখার যেন কেউ নেই ? প্রতিটি চা বাগান টিলা ভূমিতে মূল্যবান গাছ গাছালি অতিবৃষ্টি ও প্রখর রোদের কবল থেকে চা গাছকে রক্ষা করে । এ জন্য চায়ের টিলা গুলো বৃক্ষ বাজিতে ভরপুর থাকে ।

অন্য দিকে বিশাল চায়ের টিলায় গাছ গুলো মাটির ক্ষয়রোধ ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করে। তবে দীর্ঘ সময় ধরেই বাগান এলাকার আশপাশে একটি মহল চা বাগানের সেকশন থেকে মাঝে মধ্যে রাতের আধারে বিভিন্ন প্রজাতি গাছ কেটে পাচার করছে । চা বাগান থেকে ছায়াবৃক্ষ পাচার হওয়ায় জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনকে অনেক অভিযোগ দিয়েছেন ।

এছাড়া ও থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বরাবরে অনেক অভিযোগ সহ সাধারণ ডায়েরি করেছেন চা বাগান কর্তৃপক্ষ । এর পর ও বাগানের গাছ কাটা ও পাচার বন্ধ হচ্ছে না । ছায়াবৃক্ষ বা শেড ট্রি উজাড় হওয়ায় চায়ের উৎপাদনে প্রভাব পড়ছে ।

অনুসন্ধানে জানা যায় , শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী চুনারুঘাট উপজেলার লাল চান্দ , দেউন্দি , লস্করপুর , চানপুর , চন্ডি , আমু , নলুয়া , রেমা , পার কুল , শ্রী বাড়ি ও দাঁড়া গাও চা বাগান সহ মাধবপুর , বাহুবল ও নবীগঞ্জ উপজেলায় বিভিন্ন চা বাগানে পুরোনো ও বৃহদাকার বৃক্ষ বাজিতে ভরপুর । গাছের মধ্যে করই , শিল করই , আকাশি , রেইনট্রি , গর্জন , মেহগনি , সেগুন সহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছ গাছালিতে টিলা ভূমি পরিপূর্ণ । এই গাছ গুলো চা গাছের জোগান দেয় । তবে বাগান এলাকার আশপাশে বেশকিছু সিন্ডিকেট চোরাকারবারি শক্তি শালি চক্র প্রতিনিয়ত চা বাগানের গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে কিন্তু বাগান পাহারাদাররা চোর চক্রকে ধরতে পারছে না । ফলে চা বাগানের পার্শবর্তী কিছু দূরে বেশ কয়েকটি ‘ স ‘ মিলে নিয়ে গাছ গুলো চিড়ানো হয় । আবার কেউ উপজেলা শহরে বা ইউনিয়নে হাট বাজারে ‘ স ‘ মিলে চোরাই গাছ চিড়ানো হয় ।

এদিকে গাছ গুলো চিড়ে বাগানের ভেতর , বাগানের পার্শবর্তী হাট বাজার ও শহর এলাকায় বিভিন্ন আসবাবপএ তৈরি করে বিক্রি করছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায় । উপজেলার লাল চান্দ ও দেউন্দি চা বাগানের বিভিন্ন সেকশন থেকে ছায়াবৃক্ষ চুরির অনেক অভিযোগ রয়েছে চুনারুঘাট থানায় । এতে বাগানের অনেক মূল্যবান গাছ গুলো চুরি হওয়ায় চায়ের জন্য অনেক ক্ষতির কারণ বলে সংশ্লিষ্টদের দাবি । লাল চান্দ ও দেউন্দি চা বাগানের একাধিক শ্রমিকদের অভিযোগে জানা যায় , গাছ চোর চক্র বিভিন্ন দাড়ালো করাত , দা , কুড়াল নিয়ে রাতের আঁধারে হরদমই গাছ চুরি করে নিয়ে যায় । এই গাছ গুলো কেটে খন্ড খন্ড করে বাগানে পাশে কাঁধে করে ‘ স ‘ মিলে বা দূর দূরান্ত পিকআপ , ডায়না , নাবানো , ট্রলি করে নিয়ে যায় ‘ স ‘ মিল গুলোতে । চা বাগানে গাছ চুরি করার আগেই বিভিন্ন স্থানে বখরা দিয়ে পাস নিচ্ছে ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক লাল চান্দ চা বাগানের পনচায়েত জানান , দেউন্দি ও লাল চান্দ চা বাগান দিয়ে মাধবপুর উপজেলার শাহজীবাজার পাকা বা কাঁচা রাস্তা যাওয়া এবং শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা ও চুনারুঘাট উপজেলা যাওয়ার অনেক কাঁচা বা পাকা রাস্তা দিয়ে গাছ গুলো পাচার হচ্ছে । রাতে পুলিশ টহল দিলেও গাছ চোর চোখের আড়াল দিয়ে চলে যায় ।

অপর দিকে দেউন্দি চা বাগানের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চা শ্রমিক জানান , দেউন্দি চা বাগানে পাশে বস্তি ও বহিরাগত এলাকার কিছু লোক দিনের বেলায় চা কারখানায় পাশে মাঝল্যান এলাকায় সারাদিন ব্যাপি ঘোরাঘুরি করে এবং আশপাশে মদের দোকান , সেলুন , চা- দোকান , পান-সিগারেট দোকান , মুদি দোকান বা রাস্তার পাশে উৎপেতে বসে থাকে চোরাই চাপাতা করে তারা ।

এ সুযোগে সন্তোষ মদের দোকান থেকে চোলাই বাংলা মদ ক্রয় করে দিনের চেয়ে রাতে বেলায় সিএনজি , টমটম , মোটরসাইকেল যোগে মাধবপুর , শায়েস্তাগঞ্জ ও চুনারুঘাট উপজেলা সড়ক দিয়ে বা গ্রামের বিভিন্ন অলিগলি রাস্তা দিয়ে পাচার করে বিক্রি করছে অভিযোগ রয়েছে । বাগানের শ্রমিকদের বড় ধরনের ক্ষতি হবে এবং বাগানে গাছ চুরি , চোরাই চাপাতা ও মাদক পাচারকারী বিষয়ে বাগান ম্যানেজমেন্টকে বলেছি । এসব বাগান থেকে দীর্ঘ দিন ধরে মূল্য বান গাছ চুরি হচ্ছে ।

এ ব্যাপারে দেউন্দি চা বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক ফরহাদ হোসেন ও লাল চান্দ চা বাগানের ব্যবস্থাপক মোফাজ্জল হোসেন বলেন , দুটি চা বাগান থেকে দীর্ঘ দিন ধরে মাঝে মধ্যে গাছ চুরি ঘটনা ঘটছে তবে গাছ চুরি বিষয়ে বাগানে চৌকিদার ও পনচায়েত নেতাদের নিয়ে ঘনঘন বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় । তার পর ও গাছ চুরি ঠেকানো যাচ্ছে না ।

দেউন্দি চা বাগান কারখানা গেইট ম্যান বাউরী মুন্ডা জানান , বাগানের কিছু শ্রমিক কারখানাতে চাকুরী করে কিন্তু অনেক চেকিং করার পর ও কি ভাবে লুকিয়ে চাপাতা নিয়ে বাগানের কারখানা পাশে মাঝল্যান এলাকায় একটি চক্র কাছে বিক্রি করে দেয় অথবা বাগানের বিভিন্ন দোকানে চা পাতা ক্রয় করে অন্যএ বিক্রি করে দেয় ।