মাধবপুরে স্কুল ছাত্রী কে তুলে নিয়ে ধর্ষণ

মাধবপুরে স্কুল ছাত্রী কে তুলে নিয়ে ধর্ষণ
ধর্ষক রুবেল।

হবিগঞ্জের মাধবপুরে প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় এক স্কুল ছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে।

গতকাল সোমবার রাতে উপজেলার বাঘাসুরা ইউনিয়নের কালিকাপুর নোয়াগাঁও গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। ধর্ষিতার ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদিকে পুলিশ ধর্ষক রুবেল মিয়া  (২১) নামে এক যুবক কে গ্রেফতার করে।

পুলিশ জানায়, সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১ঘটিকার দিকে কালিকাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ওই ছাত্রী প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিয়ে ঘর থেকে বের হলে পূর্বথেকে উৎপেতে থাকা ওই গ্রামের মৃত ছাবু মিয়ার ছেলে রুবেল মিয়া তাকে ঝাঁপটে ধরে মুখ চাপা দিয়ে জোরপূর্বক ঘরে তুলে নিয়ে একাধিকবার ধর্ষন করে। ঘরে ফিরে আসতে ওই ছাত্রী দেরী দেখে তার স্বজনরা তাকে খোঁজাখুজি ও ডাকাডাকি করতে থাকে। শব্দ শুনে ধর্ষক তাকে রাত ১টার দিকে ঘর থেকে বের করে দেয়। পরে ওই ছাত্রী বাড়ীতে এসে বিষয়টি পরিবারকে অবহিত করেন। ধর্ষিতার বাবা একজন প্রতিবন্ধী ও মা লেবাননে বসবাস করেন।

এ ব্যাপারে ধর্ষিতার চাচা ফকির আব্দুল আহাদ রুবেল মিয়ার বিরুদ্ধে মঙ্গলবার সকালে মাধবপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পুলিশ পরিদর্শক কামরুল ইসলাম কালিকাপুর নোয়াগাঁও গ্রামে অভিযান চালিয়ে ধর্ষক রুবেল মিয়াকে গ্রেফতার করে।

মাধবপুর থানার পরিদর্শক তদন্ত গোলাম দস্তগীর আহমেদ এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন এ ব্যাপারে মাধবপুর থানায় একটি মামলা হয়েছে। ধর্ষিতার ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে ও ২২ ধারা জবানবন্দী গ্রহণের জন্য হবিগঞ্জ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ধর্ষিতার চাচা ফকির আব্দুল আহাদ জানান, ধর্ষিতাকে প্রেম নিবেদন করে প্রায়ই রুবেল উত্যক্ত করত। এদিকে ধর্ষক রুবেল মিয়াকে আদালতে হাজির করা হলে বিজ্ঞ বিচারক তাকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।