রাশেদ হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি

0
1

মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের মাধবপুর বাজারের ব্যবসায়ী রাশেদ মিয়া (৩৫) হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে এক ঘাতক।

রোববার (১৭ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট তৌহিদুল ইসলামের আদালতে ঘাতক সৈয়দ মিয়া (২৮) এ জবানবন্দি দেয়।

সোমবার বিকেলে মাধবপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসএম রাজু আহমেদ এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গত ১৬ ফেব্রুয়ারী রাতে মাধবপুর পৌর সভার পূর্ব মাধবপুর গ্রাম থেকে মিন্নত আলীর ছেলে সৈয়দ আলীকে গ্রেফতার করে তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই কামাল।

রোববার সন্ধ্যায় তাকে আদালতে হাজির করা হলে সে হত্যার দায় স্বীকার করে লোমহর্ষক বর্ণনা দেন। ঘাতক জবানবন্দিতে উল্লেখ করেন ক্রিকেট খেলা নিয়ে জনৈক যুবকের সাথে বাজী ধরে ২০ হাজার টাকা জিতে যায় ব্যবসায়ী রাশেদ।

পর দিন ২৭ নভেম্বর বাজীতে হেরে যাওয়া ওই যুবক নেশা করার জন্য রাশেদের কাছে ৫ হাজার টাকা চায়। কিন্তু টাকা দিতে রাশেদ অস্বীকার করলে তাদের মধ্যে বাকবিতন্ড হয়। এক পর্যায়ে রাশেদ ওই যুবককে একটি থাপ্পর মারে। এর প্রতিশোধ নিতে ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রফু মিয়া ব্যবসায়ী রাশেদকে হত্যার পরিকল্পনা করতে সৈয়দ মিয়াকে দায়িত্ব দেয়।

পরে ১৩/১৪জনের একটি দল রাশেদকে ২৯ নভেম্বর দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে শ্যামলী পাড়া এলাকায় ব্যবসায়ী রাশেদকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করে গুরুতর আহত করে। আশংকাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে ভর্তি করলে ১ ডিসম্বের রাতে সে মারা যায়। রাশেদের স্ত্রী নাজমা বেগম বাদী হয়ে ৩ ডিসেম্বর অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে মাধবপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই কামাল হোসেন ধৃত সৈয়দ মিয়াকে আটকের পর তার দেয়া তথ্য মতে পৌর কাউন্সিলর রফু মিয়াকে গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় কাউন্সিলর সৈয়দ মিয়া ও রফু মিয়া কারাগারে রয়েছে। এর আগে এ হত্যাকান্ডে জড়িত সন্দেহে আরো ৪ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সংবাদ সম্মেলনে মাধবপুর বাজারের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ ও নিহতের পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here