সিলেটের ৭ উপজেলায় আওয়ামী লীগের ১৬ বিদ্রোহী

0
1

সিলেট প্রতিনিধিঃ ভারত সীমান্ত ঘেঁষা উপজেলা সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ। দেশের বৃহৎ পাথরখনি অবস্থিত এই উপজেলায়। স্থানীয়ভাবে মিথ প্রচলিত, এ উপজেলার ধুলোকণায়ও টাকা উড়ে! সেই পাথর রাজ্যখ্যাত উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বী ৯ প্রার্থীর ৬ জনই আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী।

একইভাবে সিলেটের ১২ উপজেলার ৭টিতে ক্ষমতাসীন দলের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন ১৬ জন। ৫টিতে রয়েছেন নৌকার একক প্রার্থী। এছাড়া জাতীয় পার্টির ৪ জন, বিএনপির ৬ জন এবং ইসলামী ঐক্যজোটসহ (ওআইজে) ও স্বতন্ত্রসহ ১৯ জন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এ অবস্থায় বিদ্রোহীরা নৌকার বিজয় আটকে দিতে পারেন বলে সংশয় প্রকাশ করেছেন খোদ দলের নেতাকর্মী ও স্থানীয়রা।

দলের কড়া শাসনেও একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী প্রসঙ্গে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী বাংলানিউজকে বলেন, বিদ্রোহী প্রার্থীদের নির্বাচন থেকে বিরত থাকতে বলেছি। কিন্তু প্রত্যাহার না করে যারা নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে গিয়ে প্রার্থী হয়েছেন। সেসব বিদ্রোহীদের তালিকা কেন্দ্রের হাতে আছে। হাইকমাণ্ড যে সিদ্ধান্ত নেবে, সেটিই কার্যকর করা হবে।

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করলেও দলের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে বিদ্রোহী হয়ে ভোটযুদ্ধে আছেন উপজেলা দলের উপদেষ্টা ও বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল বাছির (হেলিকপ্টার), সাধারণ সম্পাদক আফতাব আলী কালা মিয়া (কাপ পিরিচ), আওয়ামী লীগ নেতা ইয়াকুব আলী (ঘোড়া),ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শামীম আহমদ (আনারস), তার স্ত্রী জরিনা বেগম (দোয়াত কলম), আওয়ামী লীগ নেতা শামসুল হক (মোটরসাইকেল)। এছাড়া জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন শামছু মিয়া চৌধুরী ও স্বতন্ত্র হিসেবে টেলিফোন প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন হাফিজ মাসুম আহমদ।

বিদ্রোহী প্রার্থীর মধ্যে সিলেটের সদর উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি নৌকা প্রতীকে আশফাক আহমদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহী হয়ে লড়ছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরে আলম সিরাজী অ্যাডভোকেট (মোটরসাইকেল),বিএনপির মাজহারুল ইসলাম ডালিম (আনারস), ইসলামী ঐক্যজোটের মাওলানা আছলাম হোছাইন রহমানী (মিনার),জাপার শাহজাহান সিরাজী (লাঙ্গল)।

দক্ষিণ সুরমা উপজেলায় প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যে আছেন-নৌকা প্রতীকে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আবু জাহিদ, দলের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী ময়নুল ইসলাম (আনারস) ও জিল্লুর রহমান (মোটর সাইকেল)।

গোয়াইনঘাটে চেয়ারম্যান পদে গোলাম কিবরিয়া হেলাল (নৌকা), দলের বিদ্রোহী যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা গোলাপ মিয়া (কাপ পিরিচ) ও যুক্তরাষ্ট্র আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহমদ (মোটর সাইকেল)। এছাড়া ইসলামী ঐক্যজোটের (আইওজে) আব্দুল করিম (মিনার), স্বতন্ত্র জামাল আহমদ (দোয়াত কলম), জেলা বিএনপির সহ সভাপতি লুৎফুল হক খোকন (আনারস) ও দলের উপজেলার সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম স্বপন (ঘোড়া) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন।

বিয়ানীবাজার উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান খান (নৌকা),বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলার সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ জাকির হোসেন (আনারস), উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আবুল কাশেম পল্লব (হেলিকপ্টার), সদস্য যুক্তরাজ্য প্রবাসী শামীম আহমদ (মোটর সাইকেল), জাপার উপজেলা সভাপতি আবুল হাসনাত (দোয়াত কলম), আলকাছ আলী (ঘোড়া)।

কানাইঘাটে সিলেট মহানগর কৃষকলীগের সভাপতি আব্দুল মোমিন চৌধুরী (নৌকা), বিদ্রোহী জেলার উপ প্রচার সম্পাদক মোস্তাক আহমদ পলাশ (মোটরসাইকেল), সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা আবুল খায়ের চৌধুরী (আনারস), ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ’র এহসানুল হক (গাভী)।

ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা, সাংবাদিক শাহ মুজিবুর রহমান জকন (নৌকা), দলের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা নূরুল ইসলাম (কাপ পিরিচ), স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা ওহিদুজ্জামান ছুফি (দোয়াত কলম), প্রবাসী হারুনুর আহমদ চৌধুরী (ঘোড়া), তালামিয নেতা হারুনুর রশীদ (মোটরসাইকেল), মাহতাব উদ্দিন আহমদ (আনারস) ও প্রবাসী মনির আলী নানু (ব্যাটারি) প্রতীকে ভোটের মাঠে রয়েছেন।

নৌকা প্রতীকে একক প্রার্থী গোলাপগঞ্জ উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান ইকবাল আহমদ চৌধুরী (নৌকা)। তার প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রতীকের জেলা বিএনপির সহ সভাপতি রশিদ আহমদ, ইসলামী ঐক্যজোট-(আইওজে) জাহির উদ্দীন (মিনার)।

বিশ্বনাথে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী জেলা শাখার উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য এসএম নুনু মিয়া (নৌকা), ইসলামী ঐক্যজোট-ওআইজে কাজি রুহুল আমীন (মিনার), স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান সোহেল আহমদ চৌধুরী (কাপ পিরিচ) ও মিসবাহ উদ্দিন (আনারস) প্রতীকে ভোটযুদ্ধে লড়বেন।

বালাগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী মোস্তাকুর রহমান (নৌকা), জাতীয় পার্টির আব্দুর রহিম (লাঙ্গল), বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবদাল মিয়া (ঘোড়া) ও মোহাম্মদ গোলাম রব্বানী (আনারস)।

জৈন্তাপুর উপজেলায় আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী লিয়াকত আলী (নৌকা)। তার বিপরীতে আছেন ইসলামী ঐক্যজোটের (আইওজে) আব্দুল মতিন (মিনার) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী কামাল আহমদ (ঘোড়া)।

জকিগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদ আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী উপজেলা সভাপতি লোকমান উদ্দিন চৌধুরী (নৌকা)। তার প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী মর্তুজা আহমদ চৌধুরী (লাঙ্গল), ইসলামী ঐক্যজোট-ওআইজে প্রার্থী আব্দুস সামাদ (মিনার), স্বতন্ত্র প্রার্থী সুয়েব লস্কর (আনারস)।

তফসিল অনুযায়ী সিলেটের ১২ উপজেলায় চেয়ারম্যানসহ ৩টি পদে দ্বিতীয় ধাপে নির্বাচন আগামী ১৮ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে।